Wednesday, 07 December 2022

   11:30:09 PM

logo
logo
আরএমপি'র সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তায় তিন সপ্তাহে ১০০ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার; ফোন উদ্ধারে নগরবাসীর আস্থা বাড়ছে আরএমপি'র প্রতি

2 months ago

আরএমপি'র সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তায় তিন সপ্তাহে ১০০ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার

আরএমপি নিউজঃ রাজশাহী মহানগরীতে হারানো মোবাইল ফোন উদ্ধারে আরএমপি'র প্রতি আস্থা বাড়ছে নগরবাসীর। তিন সপ্তাহে উদ্ধার হয়েছে ১০০ টি মোবাইল ফোন। এই কাজে তথ্য প্রযুক্তিগত সকল সহায়তা করে আসছে আরএমপি'র সাইবার ক্রাইম ইউনিট।

রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের সম্মানিত পুলিশ কমিশনার মো: আবু কালাম সিদ্দিক এর দূরদর্শী সিদ্ধান্ত মোতাবেক রাজশাহী মেট্রোপলিটন এলাকায় ডিজিটাল মাধ্যমে সংগঠিত অপরাধ দমনে মহানগরবাসীর প্রত্যাশাপূরণে গত ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ সাইবার ক্রাইম ইউনিট প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রতিষ্ঠার পর হতেই এই ইউনিট ক্লু-লেস মামলার রহস্য উদঘাটন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সংঘটিত অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, চুরি, ছিনতাই-ডাকাতি-সহ হারানো মোবাইল ফোন উদ্ধারে অনন্য সাফল্য দেখিয়ে আসছে।

এসএ টিভির ক্যামেরাপারসন আবু সাঈদ জানান, তার ছোট ভাই নাফিস ইকবাল রিক্সায় নগরীর মতিহার থানা বিনোদপুর বাজারে যাওয়ার সময় তার পকেট থেকে মোবাইল ফোনটি পরে গিয়ে হারিয়ে ফেলে। এ সংক্রান্তে তিনি মতিহার থানায় একটি জিডি করেন। মতিহার থানা পুলিশ মোবাইল ফোনটি উদ্ধারের উদ্যোগ করেন এবং প্রয়োজনীয় তথ্য চেয়ে সাইবার ক্রাইম ইউনিটে আবেদন করেন। দীর্ঘ ৯ মাস পর আরএমপি সাইবার ক্রাইম ইউনিট তথ্য প্রযু্ক্তি ব্যবহার করে জানতে পারে, হারানো মোবাইল ফোনটি ঢাকার এক ব্যক্তি ব্যবহার করছেন। মতিহার থানা পুলিশ মালিকানার বিষয়ে তার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, অনলাইনের মাধ্যমে পাবনার এক ব্যক্তির কাছ থেকে ফোনটি কিনেছেন। পরবর্তীতে তিনি চোরাই ফোন কিনেছেন জানতে পেরে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে মতিহার থানায় সেই মোবাইল ফোনটি প্রেরণ করেন। এরপর ফোনটি মতিহার থানা পুলিশ মালিকের কাছে হস্তান্তর করেন। 

সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহকারী পুলিশ কমিশনার উৎপল কুমার চৌধুরী, পিপিএম জানান, চলতি মাসে (সেপ্টেম্বর) আরএমপি'র ১২ থানা ও  মহানগর ডিবি পুলিশকে বিভিন্ন ব্রান্ডের একশতটি মোবাইল ফোন উদ্ধারে প্রযুক্তিগত তথ্যাদি সরবরাহ করে সহায়তা করেছে আরএমপি সাইবার ক্রাইম ইউনিট। এতে করে আরএমপি'র প্রতি নগরবাসীর আস্থা বাড়ায় এখন গড়ে প্রতি দিন প্রায় ২০ টি করে মোবাইল ফোন হারানো জিডি'র তথ্যাদি চেয়ে আবেদন করছে। এমনকি পাশ্ববর্তী জেলাগুলোতেও চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে তথ্য সরবরাহ করছে আরএমপি সাইবার ক্রাইম ইউনিট।  

এরকম মোবাইল ফোন হারানোর ঘটনায় আরএমপি'র সাইবার ক্রাইম ইউনিটের দেওয়া প্রযুক্তিগত তথ্যাদি পর্যালোচনা করে আরএমপি'র বিভিন্ন থানা ও ডিবি পুলিশ তিন সপ্তাহে ১০০ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে প্রকৃত মালিকের কাছে হস্তান্তর করেছে। যার কারণে হারানো মোবাইল উদ্ধারে আরএমপি'র প্রতি ভরসা বেড়েছে রাজশাহী মহানগরবাসীর। হারানো ফোন পেয়ে মালিকরা আরএমপি'র পুলিশ কমিশনার-সহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। 

আরএমপি'র সাইবার ক্রাইম ইউনিট হারিয়ে যাওয়া মোবাইল ফোনের মালিকদের রাজশাহী নগরীর সংশ্লিষ্ট থানায় প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে জিডি করার পরামর্শ দিয়েছে।