Tuesday, 22 September 2020

   12:53:36 PM

logo
পুলিশ সেজে ছিনতাই, অতঃপর পুলিশের অভিযান এবং পুলিশের হাতে ছিনতাইকারীরা আটক, মালামাল উদ্ধার।

7 months ago

রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানাধীন হেতেমখাঁ এলাকার মোঃ আলতাফ হোসেন এর ছেলে মোঃ অমিত হাসান ফয়সাল(২২) ও তার বন্ধু মোঃ সোহান(২২), শ্যালক মোঃ রাব্বেল(১৭) ও রাব্বেলের বন্ধু মোঃ আব্দুল্লাহ বিন জুবায়ের(১৭) সহ ০৭/০২/২০২০ তারিখ রাত্রী অনুমান ০৮.৫০ ঘটিকায় খেঁজুরের রস পান করার জন্য তার পূর্ব পরিচিত মোঃ রুহুল আমিন(২০), পিতা-মোঃ আব্দুল মতিন, সাং-সুচরন, থানা-কাটাখালি, মহানগর রাজশাহী এর সাথে যোগাযোগ করে কাটাখালি থানাধীন সুচরন গ্রামস্থ সুচরন গ্রামস্থ জনৈক মোঃ ইসলামের ভিটা নামক স্থানে যায়। খেঁজুরের রস পান করার সময় মোঃ রুহুল আমিন(২০) কৌশলে কয়েকজন ছিনতাইকারীকে খবর দিয়ে ডেকে আছে। তারা পুলিশের জ্যাকেট পরিধান করে নিজেদের পুলিশ পরিচয় দিয়ে অমিত হাসান ফয়সাল ও তার বন্ধুদের মারধর ও ভয়ভীতি প্রদর্শণ করে তাদের নিকট হতে ০৫ টি মোবাইল ফোন ও নগদ ১২৭৩/-টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরবর্তীতে ভুক্তভোগীরা কাটাখালী থানায় এসে পুলিশকে অবহিত করলে কাটাখালী থানা পুলিশের একটি চৌকস দল পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) মোঃ মতিয়ার রহমান এর নেতৃত্বে পুরো ঘটনাটিকে উদঘাটনের জন্য উদ্দেশ্যে দ্রুত অভিযান শুরু করে। পুলিশ দ্রুত অভিযান চালিয়ে সুকৌশলে ঘটনার সাথে জড়িত আসামী ১। মোঃ রুহুল আমিন(২০) সহ ২। মোঃ নিলয়(২০), পিতা-মোঃ মুকবেল, ৩। মোঃ সাগর(২২), পিতা-মোঃ জামাল উদ্দিন, উভয় সাং-সুচরন, ৪। মোঃ শ্রাবন(২০), পিতা-মোঃ জামাল হোসেন, সাং-রুপশীডাঙ্গা (হরিয়ান বাজার), সকলের থানা-কাটাখালি, মহানগর রাজশাহীদের গ্রেফতার করে এবং তাদের জিজ্ঞাসাবাদে তাদের নিকট হতে ছিনতাইকৃত ০৫ টি মোবাইল ও পুলিশের জ্যাকেট উদ্ধার করা করে। এ সংক্রান্তে আরএমপির কাটাখালী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ছিনতাইকৃত অর্থ উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।